May 17, 2024

Bharat News Bazar

Indian news in multiple language

How Taylor Swift is adding $5 billion in usa economy

1 min read

টেইলর সুইফট বর্তমান সময়ে পপ সংগীতের এক অতি সুপরিচিত নাম।কিন্তু সম্প্রতি টেইলর সুইফট এর হাত ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিতে মোট $৫.৭ বিলিয়ন যুক্ত হয়েছে। যা নিজেই একটি মাইলফলক।

টেইলর সুইফট এর জন্ম ১৩ই ডিসেম্বর ১৯৮৯মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া এর ওয়েস্ট রিডিং এ।টেইলর ১৪ বছর বয়স থেকেই পেশাদারী গান রচনা শুরু করে,গীতিকার হিসাবে।২০০৫ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সে বিগ মেশিন রেকর্ড এর সাথে ৬টি স্টুডিও এলবাম বের করে।আর এখান থেকেই শুরু।তার অনুরাগীদের বলা হয় “সুইফটিস”।

মাত্র ৩৩ বছর বয়সী গীতিকার এবং গায়িকা সম্প্রতি বিশ্বব্যাপী  ইংরেজি গানের বাজারে যে পরিবর্তন নিয়ে এসেছে যা আজ পর্যন্ত কেউ কখনও কল্পনাও করেনি।সুইফট এর একটি বিপ্লবী পদক্ষেপ শিল্পীদের তার নিজের গানের সংগীত মালিকানা নিজের হাতের মুঠোয় নিয়ে এসেছে।

সম্প্রতি বার্কলে, ক্যালিফোর্নিয়া, স্ট্যানফোর্ড, হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে বলেছে যে আগামী বছর থেকেই টেইলর সুইফট এর নামে একাডেমিক কোর্স শুরু হতে চলেছে তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে।যদিও এর মধ্যে সবচেয়ে আশঙ্কা জনক ব্যাপার হল যে এই সকল বিশ্ববিদ্যালয় গুলো তাদের শিক্ষার্থীদের খরিদ্দার বা ক্রেতার মত ব্যবহার করা শুরু করে দিয়েছে যথেচ্ছ ভাবে।হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষিকা স্টেফাইনি বার্ট ক্লাস নিচ্ছেন টেইলর সুইফট যে যে শব্দ ব্যবহার করে এবং তার অর্থ কি তার উপর ভিত্তি করে।

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিতে টেইলর সুইফট এবং তার সাথে যুক্ত সহযোগী ব্র্যান্ডগুলোর বাণিজ্যিক প্রভাব গত কয়েক বছরে অভূতপূর্ব ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।সম্প্রতি সুইফট এর যে (রেপুটেশন স্টেডিয়াম ট্যুর)ছিল শুধু তাতেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জিডিপিতে $৫.৭ বিলিয়ন ডলার যুক্ত হয়েছে।

সারা পৃথিবীতে আজ পর্যন্ত যে কোনও শিল্পী যত কনসার্ট করেছে,কোনও শিল্পী আজ পর্যন্ত এই পরিমাণ অর্থ তার কনসার্ট থেকে আয় করতে পারিনি।মাত্র ৫৩টি শো এর মাধ্যমে টেইলর সুইফট এর এখন মোট নেট সম্পদের পরিমান $১.১ বিলিয়ন।তার গান এবং মার্চেন্ডিস এর মাধ্যমে সারা পৃথিবী ব্যাপী প্রতিদিন তার বিপুল পরিমাণ আয় হচ্ছে।

তাছাড়া এনএফএল খেলোয়াড় ত্রাভিস কেলছে এর সাথে সুইফট এর সম্পর্ক এর বিষয়ে জানার পর কেলছে এর জার্সি বিক্রি ৪০০% বেড়েছে।আর এনএফএল খেলা দেখতে যেহেতু প্রচুর সুইফট ফ্যানরা আসছে,তাই টিকেট এর দাম ও ৪০% বৃদ্ধি পেয়েছে।টেইলর সুইফট যখন নিজে স্টেডিয়ামে নিয়মিত এসে খেলা দেখে,তার জন্য তার প্রভাব পুরো এনএফএল সহ সব ধরনের ক্রেতার উপর পড়ে।

সারা পৃথিবীব্যাপী ডিজিটাল প্লাটফর্মের রমরমা এখন।স্পোটিফাই এবং ইউটিউব থেকে সুইফট এর আয় $১২০ মিলিয়ন।আবাসন ব্যবসা তে তার বিনিয়োগের পরিমাণ $১১০ মিলিয়ন।সম্প্রতি টেইলর এর উপর একটি ডকুমেন্টারি মুক্তি পেয়েছে সেটি থেকে আয়ের পরিমান $২০০ মিলিয়ন।

সুইফট। সুইফটিস অর্থাৎ টেইলর সুইফট এর অনুরাগী বা ভক্তরা টেইলরকে তাদের বন্ধু হিসাবে দেখে।তাদের মধ্যে অনলাইনে এবং অফলাইনে যোগাযোগ একই রকম দৃঢ়।যা কে পপ অনুরাগীদের মধ্যেও নেই।সুইফট তার অনুরাগীদের মধ্যে মাঝে মাঝে tumblrs এপ্লিকেশন এর মধ্যে তাদের কমেন্ট এর উত্তর করে।এছাড়া মাঝে মাঝে ১০০ জন এর মত অনুরাগীদের নিজের বাড়িতে নিমন্ত্রণ করে পার্টি করতে,সেখানে তাদের উপহারও দেয়।তাছাড়া মাঝে মাঝে বিভিন্ন পার্বণে সরাসরি তাদের বাড়িতেও টেইলর নিজে উপহার পাঠায়।এতটাই নিবিড় সম্পর্ক ফ্যান এবং সুইফট এর।যা তাকে সাফল্যের চূড়াতে নিয়ে যেতে সাহায্য করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.